Computer Tutorial In Bangla

এক্সেস টেবিল রিলেশন করা । এক্সেস ২০১৬ বাংলা টিউটোরিয়াল – পর্ব ৮

এক্সেস টেবিল রিলেশন করার বিভিন্ন পদ্ধতি

ডাটা ম্যানেজমেন্টের ক্ষেত্রে এক্সেস টেবিল রিলেশন করা অত্যাবশ্যক। একটি ডেটাবেজে একাধিক টেবিল থাকতেই পারে। আর দুটি টেবিলের কমন ফিল্ডের উপর ভিত্তি করে সম্পর্ক স্থাপন করাকেই রিলেশনশিপ বলে। যে ডেটাবেজের টেবিলের মধ্যে রিলেশন থাকে সে ডেটাবেজকে রিলেশনাল ডেটাবেজ বলা হয়। রিলেশনকৃত টেবিলের মধ্যে থেকে খুব সহজে ডেটা ব্যবস্থাপনার কাজ সম্পাদন করা যায়।

অর্থাৎ ডেটাবেজকে ভেঙ্গে একাধিক ডেটা টেবিল তৈরি করে রিলেশনশিপের মাধ্যমে ডেটা নিয়ে কাজ করা যায়। ১৯৬৯ সালে Edgar Frank Codd সর্বপ্রথম রিলেশনশিপ পদ্ধতি প্রবর্তন করেন। Edgar Frank Codd ১৯ আগস্ট ১৯২৩ সালে Fortuneswell, Dorset, England এ জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৮ এপ্রিল ২০০৩ সালে Florida, USA মৃত্যুবরণ করেন।

টেবিলদ্বয়ের ভিতর রিলেশন তৈরি করার শর্ত

দুটি টেবিলের মধ্যে রিলেশনশিপ তৈরি করতে হলে নূন্যতম নিচের শর্তগুলো পূরণ করতে হবে:

টেবিল রিলেশনের প্রকারভেদ

একাধিক ডেটা টেবিলের মধ্যে নিম্নলিখিত ৩টি পদ্ধতিতে রিলেশন তৈরি করা যায়। যথা-

One-to-one রিলেশন: কোন ডেটাবেজের একটি টেবিলের একটি রেকর্ডের সাথে অন্য টেবিলের শুধুমাত্র একটি রেকর্ডের সাথে সম্পর্ক স্থাপন করা হয়, তাকে One-to-one রিলেশনশিপ বলে। যখন কোন ডেটাবেজকে ভেঙ্গে একাধিক ডেটাটেবিলে সংরক্ষণ করা হয় তখন One-to-one রিলেশন থাকা জরুরী।

ধরুন, কোন প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীর নাম, ঠিকানা, পদবি ইত্যাদি একটি ডেটা টেবিলে এবং তাদের বেতন সংক্রান্ত তথ্যাবলি অন্য ডেটা টেবিলে সংরক্ষণ করা যায়। এক্ষেত্রে দুটি ডেটা টেবিলের মধ্যে একটি কমন ফিল্ডের ওপর ভিত্তি করে One-to-one রিলেশনশিপ তৈরি করা হয়।

একটি বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবে, এক্ষেত্রে দু‘টি টেবিলের যে ফিল্ডের সাথে রিলেশন তৈরি করতে চান ফিল্ড দু‘টিকে অবশ্যই প্রাইমারি কী দ্বারা ডিফাইন করতে হবে।

হাতে কলমে One-to-one রিলেশন

নিচের মত দু‘টি টেবিল তৈরি করুন।

টেবিলের নাম: Employee Information

টেবিলের নাম: Employee Salary

লক্ষ্য করুন টেবিল দু‘টির মধ্যে Emp_ID ফিল্ডটি কমন এবং প্রাইমারি কী দ্বারা ডিফাইন করা হয়েছে।

হয়ে গেল One-to-one রিলেশনশিপ। এবারে টেবিল দু‘টির মধ্যে রেকর্ড ইনপুট করুন। সাধারণত টেবিলসমূহের মধ্যে রিলেশনশিপ তৈরি করার পর ডেটা ইনপুট করতে হয়।

One-to-Many রিলেশন: কোন ডেটাবেজের একটি টেবিলের একটি রেকর্ডের সাথে অন্য টেবিলের একাধিক রেকর্ডের সাথে সম্পর্ক স্থাপন করা হয়, তাকে One-to-Many রিলেশনশিপ বলে। টেবিল রিলেশনের ক্ষেত্রে এটি বহুল ব্যবহৃত রিলেশন পদ্ধতি।

ধরুন, কোন প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন সরবরাহকারী বিভিন্ন পণ্য সরবরাহ করে থাকে। এজন্য সরবরাহকারীর বিভিন্ন তথ্য সংরক্ষণের জন্য একটি টেবিল এবং পণ্য সংক্রান্ত তথ্য সংরক্ষণের জন্য একটি টেবিল তৈরি করা আছে।

হাতে কলমে One-to-Many রিলেশন

এজন্য নিচের মত প্রাইমারি কী সম্বলিত দু‘টি টেবিল তৈরি করুন।

টেবিলের নাম: Suppliers Information

টেবিলের নাম: Suppliers Orders

লক্ষ্য করুন টেবিল দু‘টির মধ্যে Cust_ID ফিল্ডটি কমন এবং প্রাইমারি কী দ্বারা ডিফাইন করা হয়েছে। এবারে Customer টেবিলের Emp_ID ফিল্ডটি ড্রাগ করে Order টেবিলের Emp_ID ফিল্ডের উপর ছেড়ে দিন।

হয়ে গেল One-to-Many রিলেশনশিপ।

হাতে কলমে Many-to-Many রিলেশন

টেবিল তৈরি করার বিভিন্ন পদ্ধতি ৭নং পর্বে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। এবারে রিলেশনশিপ বোঝার জন্য ৩টি টেবিল তৈরি করে তাদের মধ্যে রিলেশনশিপ তৈরি করবো। নিচে ৩টি টেবিলের নাম, ফিল্ডের নাম ও ডেটা ধরণ দেওয়া হলো:

নোট: Field Name এর পাশে (PK) দ্বারা Primary Key বোঝানো হয়েছে। অর্থাৎ ঐ সমস্ত ফিল্ডকে Primary Key দ্বারা ডিফাইন করুন।

টেবিলের নাম: Customers

Field Name Data Type
CustomerID (PK) AutoNumber
CustomerName ShortText
CustomerAddress ShortText
DateCreated Date&Time
CellNumber ShortText

টেবিলের নাম: Products

Field Name Data Type
ProductID (PK) AutoNumber
Product Name ShortText
Price ShortText
Date Created Date&Time

টেবিলের নাম: Orders

Field Name Data Type
OrderID (PK) AutoNumber
CustomerID ShortText
ProductID ShortText
DateCreated Date&Time

তাহলে ঝটপট তৈরি করে ফেলুন উপরের ৩টি টেবিল এবং প্রতিটি টেবিল কিছু রেকর্ড ইনপুট করুন।

এবারে ৩টি টেবিলের মধ্যে রিলেশনশিপ তৈরি করার জন্য নিম্নরূপ পদক্ষেপ গ্রহণ করুন।

লক্ষ্য করুন, সিলেক্টকৃত ৩টি টেবিল Relationships উইন্ডোতে প্রদর্শিত হয়েছে।

এবারে রিলেশন করার পালা।

উপরের চিত্রে লক্ষ্য করুন, Customers এবং Orders দুটি টেবিলের মধ্যে CustomerID নামে একই ফিল্ড নেম ও ডেটা টাইপের ফিল্ড রয়েছে। এছাড়াও Orders এবং Products টেবিলদ্বয়ের মধ্যে ProductID নামে একই ফিল্ড নেম ও ডেটা টাইপের ফিল্ড রয়েছে।

এক্ষেত্রে আমরা Customers এবং Orders দুটি টেবিলের মধ্যে এবং Orders এবং Products টেবিলদ্বয়ের মধ্যে রিশেনশিপ তৈরি করবো।

দেখুন টেবিল দু‘টির মধ্যে রিলেশন তৈরি হয়ে গেছে এবং একটি বক্র রেখা দ্বারা তা প্রদর্শিত হচ্ছে।

অবশেষে ৩টি টেবিলের মধ্যে ২টি রিলেশনশিপ নিম্নের চিত্রের মতো প্রদর্শিত হবে।

রিলেশনশিপ এডিট করা

রিলেশনশিপ মুছে ফেলা

টেবিল রিলেশনশিপের সুবিধা কি?

যে কোন রিলেশনাল ডেটাবেজ (RDBMS) এর জন্য রিলেশনশিপই হলো মূল ভিত্তি।

ডেটাবেজ ডিজাইন করার জন্য রিলেশনশিপ একটি শক্তিশালি ‍টুলস হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

এখানে ডেটাবেজ ডিজাইনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ সুবিধাসমূহ বর্ণিত হলো:

প্রাইমারি কী (Primary Key) কি?

একাধিক টেবিলের মধ্যে রিলেশন তৈরি করার জন্য প্রাইমারি কী দ্বারা টেবিলের ফিল্ডকে ডিফাইন করতে হয়। টেবিলের ফিল্ডকে প্রাইমারি কী দ্বারা নির্ধারণ করা হলে ঐ ফিল্ডে কোন ডুপ্লিকেট ডেটা টাইপ করা যাবে না এবং ঐ ফিল্ডটিকে খালি (Null) রাখা যাবে না।

 8,293 total views,  1 views today

Related

Exit mobile version